10/01/2018

ভালোবাসা কে নতুন রঙে রাঙানোর টিপস


যান্ত্রিক জীবনে ইট কাঠের দেয়ালে ভালোবাসার রঙ ক্রমশই ফিকে হয়ে যায়।
তাই বলে কি পুরনো হয়ে যায় আমাদের ভালোবাসা? কখনই নয়।
কোন প্রেম কোন স্বপ্নই কখনো মৃত হয়না। আসুন ধুলোপড়া ভালোবাসাকে নতুন রঙে রাঙানোর কিছু টিপস জেনে নেই।

 

 

আজি ঝরো ঝরো মুখর বাদর দিনে………………..


ড্রয়িং রুম,বুক সেলফ, ওয়ারড্রব কিংবা গ্যারেজ সাফসুতরো করতে পারেন।
এসব কাজ করা কোনো ব্যাপার নয় যদি দুজন একসঙ্গে করা যায়।
এক্সারসাইজ করতে পারেন।

চলে যান কোনো সুইমিং ক্লাবে সাঁতার কাটতে কিংবা স্রেফ বৃষ্টিতে হাঁটাহাঁটি করেও উপভোগ করতে পারেন সময়।
ম্যারাথন মুভি দেখতে বসে যান। আশপাশের ভিডিও শপ থেকেএকগাদা মুভি আনুন,
সেই সঙ্গে খাবার-দাবার। সারাটা দিন মুভি ক্রিটিক হিসেবেই কাটিয়ে দিন।

কোনো একটা আর্ট গ্যালারি ঘুরে আসুন। আপনার এলাকায় বা এর আশপাশে হচ্ছে এমন কোনো একজিবিশন ঘুরে দেখুন দুজন।
সময়কে পিছিয়ে নিন, ঘুরে আসুন মিউজিয়ামে।
অনেক প্রত্নতাত্ত্বিক জায়গা আছে যেগুলো কেবল দর্শনীয় হিসেবেই খ্যাত নয় বরং সেখানে ঘুরে কিছু শেখাও সম্ভব।

 

 

স্মৃতিশক্তির উন্নতি ঘটাতে পারেন…………………

দুজনের স্মৃতিশক্তির উন্নতি ঘটাতে পারেন। অনলাইনে মেমোরি টেস্টের বিভিন্ন প্রোগ্রাম থেকে। দিনজুড়ে দুজন দুজনার মনে রাখার ক্ষমতা যাচাই করতে পারেন।

 

 

নিজেদের আবিষ্কার করুন…………………

বইয়ের দোকান কিংবা ইন্টারনেটে আজকাল অনেক ধরনের পারসোনাল প্রোফাইলটুলস পাওয়া যায় যেগুলো আপনাদের ব্যক্তিত্বের ধরন,
আপনাদের আইকিউ অথবা আপনাদের রিলেশনশিপ স্টাইল খুঁজে পেতে সাহায্য করবে।

 

 

কিছু তৈরি করতে পারেন………………………

দুজনে মিলে কিছু তৈরি করতে পারেন,হতে পারে একটা টি-টেবিল,
কোনো সেলফ,পটারি ডিশ,ফ্লাওয়ার ভাস,চেহারার ভাস্কর্য,ক্যান্ডল ইত্যাদি।
ক্রাফট শপে গেলে এ ধরনের শত শতআইডিয়া পাবেন।

 

 

ফুটবল বা ক্রিকেট খেলা দেখে আসতে পারেন…………

যদিও খেলাধুলা খুব একটা ধাতে সয় না আপনার তবু পরিবেশের একটা প্রভাব তো আছেই।
যাওয়ার আগে পত্রিকার পাতায়ফিকশ্চার লিস্ট দেখে নিন।
সন্ধ্যাটা নিজেদের ব্যাপক পছন্দের আইটেম দিয়ে সাজান।
টিভি প্রোগ্রামের তালিকায় চোখ বুলিয়ে নিন আর বিনোদনে ভরপুর একটা রাত তৈরি করুন।

 

 

মেঘের কোলে রোদ হেসেছেবাদল গেছে টুঁটি……


দুজন মিলে হাঁটতে বেরুতেপারেন যে কোনো জায়গায়। হাইকিংয়ে বের হতে পারেন।
হাইকিং হলো পায়ে হেঁটে দীর্ঘ পথ ভ্রমণ। আশপাশে কোনোপাহাড়ি পথ থাকলে দুজনে হাঁটা ধরুন,
দেখুন ক্লান্ত হয়ে কে আগে বসে পড়ে। অভ্যাস থাকলে সাইকেল রাইডিংয়েও বেরিয়ে পড়তে পারেন দুজনে।
হাঁটার মতো সাইকেলও এনার্জেটিক ও চমৎকার।

হাঁটা বা সাইকেল দুই ক্ষেত্রেই মানসিক চাঙ্গা ভাবের সঙ্গে সঙ্গে আপনার স্বাস্থ্যেরও উন্নতি ঘটে।
বোট ভাড়া করতে পারেন। নৌকা বাইতে বাইতে নদী বা লেকের এলোমেলো হাওয়ায় চুল উড়িয়ে একটা রোমান্টিক নৌকা ভ্রমণ সেরে ফেলতে পারেন।
পার্কে ঘুরে আসুন। দোলনায় দোল খেয়ে সময় কাটাতে পারেন বা খেলতে পারেন টেনিস।

রিকশা করে ঘুরতে অনেকেরই পছন্দ। লম্বা খোলা রাস্তায় ঘণ্টা চুক্তিতে রিকশা ভাড়া করে বেরিয়ে পড়ুন অজানার উদ্দেশে।
গ্রামের বাড়িতে বেড়িয়ে আসুন। আপনার নিজের মায়ার বাঁধনে বাঁধা নিড়ে ফিরে কিছুটা প্রেরণা নিয়ে আসুন নিজের মধ্যে।

নিজেদের পশুসুলভ প্রবৃত্তিকে মেনে নিয়েই ঘুরে আসুন চিড়িয়াখানা বা কোনো বড় ফার্ম হাউসে। পার্কের এদিক-ওদিক ঘোরার সময় রিলাক্স থাকুন।
আর মাকড়সা কিংবা সাপকে যদি আপনি অপছন্দ করেন তবে বানরের খাঁচার কাছে গিয়েও কাটাতে পারেন সময়।

পিকনিকের কথা ভুলবেন না। ওপরের আইডিয়াগুলোকে আরো আনন্দদায়ক করে তুলতে সঙ্গে মজার মজার খাবার নিতে ভুলবেন না কিন্তু।

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook

Instagram

You Tube

"At the end of Love there is Pure Love"

Pure Love © 2020 | Privacy Policy