09/01/2018

কীভাবে চুম্বন করছেন তা বলে দেবে কাছের মানুষের ভালোবাসা কতটা

একটা চুমু। তাতেই বলা হয়ে যায় হাজারো কথা। শুধু শরীরে শরীরে ছোঁয়া নয়, মনের কথাই প্রকাশ পায় চুম্বনে। শব্দে যা প্রকাশ করা যায় না তা মুহূর্তে বুঝিয়ে দিতে পারে।
তবে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় চুমুর আলাদা আলাদা মানে আছে। গালে, কপালে বা ঠোঁটে ঠোঁট; প্রত্যেকটি আলাদা আলাদা কথা বলে।

 

কপাল:


পার্টনারকে “ভালোবাসি” বলার সবচেয়ে মিষ্টি পন্থা হল কপালে একটি ছোট্ট চুমু। প্রেম, শ্রদ্ধা ও যত্ন প্রকাশ পায় এই চুমুতে।
এই চুমু বলে দেয় আপনার পার্টনার আপনার উপর কতটা যত্নশীল। নমনীয়ভাবে মনে করিয়ে দেয় সে আপনাকে কখনও আঘাত দেবে না।
বিশ্বাসের গভীরতা প্রকাশ পায় এই চুমুর মাধ্যমে।

 

 

হাত:


এর একাধিক মানে হতে পারে। তবে সবচেয়ে বেশি এই চুমু বন্ধুত্বের প্রতীক হিসেবেই পরিচিত। কখনও বন্ধুত্বকে তার পরের পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার জন্যও অনেকে হাতে চুমু খায়।
কেউ যদি আপনার হাতে চুমু খায় তাহলে বুঝে নিতে হবে সে আপনাতে মুগ্ধ। সারাজীবন আপনার সঙ্গে থাকতে চায়।

 

 

কান:


এই চুমু সবচেয়ে প্যাশনেট। রোম্যান্সের পরিষ্কার প্রকাশ কানে হালকা একটা চুমু। পার্টনারের সেনসেশন জাগিয়ে তুলতে কানের লতিতে একটা চুমু যথেষ্ট।
আর তারপর যদি লতির চারপাশে জিভের কারুকাজ শুরু হয়, তাহলে তো কথাই নেই।

 

 

ঘাড়:


পার্টনারের প্রতি যত্ন প্রকাশ করে ঘাড়ে চুমু। স্নেহ, সমর্থন ও বন্ধুত্ব প্রকাশ করে৷ তবে শুধু তাই নয়। এই চুমুও যথেষ্ট প্যাশনেট।

 

 

সিঙ্গল লিপ কিস:


ঠোঁটে ঠোঁট৷ কিন্তু গভীর চুমু নয়। মাত্র একবার, মুহূর্তের জন্য হালকা একটা চুমু। তবে এর অর্থ কিন্তু খুব গভীর।
আপনার পার্টনার আপনার জন্য কতটা ‘পাগল’ তা জানান দেয় সিঙ্গল লিপ কিস।

 

 

ফ্রেঞ্চ কিস:


এর মানে আপনি ও আপনার পার্টনার একে অপরের কাছে দারুণ কমফর্টেবল। শারীরিক সম্পর্ক আপনারা উপভোগ করেন।

 

আরএম-২৩/০৩-০১ (লাইফস্টাইল ডেস্ক, তথ্যসূত্র: কলকাতা২৪)

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook

Instagram

You Tube

"At the end of Love there is Pure Love"

Pure Love © 2020 | Privacy Policy