23/04/2018

নিজ কন্যার স্তনপান করছেন এই ব্যক্তি, কিন্তু কেন? আসল কাহিনী জানলে চোখে জল আসবে…

এই ছবিটি দেখে হয়তো অনেকের মনে রাগ হতে পারে। কিন্তু এই ছবিটির পেছনে যেই আসল সত্যটি লুকিয়ে আছে সেটি জানার পর হয়তো আপনার চোখে জল চলে আসতে পারে। এই ছবিটি চিত্রায়ন করেছেন মুরলী নামের এক আর্টিস্ট।

চিত্রে অঙ্কিত লোকটিকে ইউরোপের একটি দেশে সাজা দেওয়া হয় যে যতদিন তিনি বাঁচবেন ততদিন তিনি তাকে অভুক্ত রাখা হবে। এই সাজা শুনিয়ে তাকে কারাগারে বন্দি করে রেখে দেওয়া হয়। অর্থাৎ তার সাজা হলো সে কোনো খাবার খেতে পারবেনা।

বাবার এমন করুণ অবস্থা দেখে মেয়েটি সেই দেশের সরকারের কাছে তার বাবার সাথে দেখা করতে দেওয়ার অনুমতি চাইলো। তার এই আবেদনে সাড়া দিয়ে সরকার তাকে তার বাবার সাথে প্রতিদিন একবার করে দেখা করতে দেওয়ার অনুমতি দিলো।

কারাগারে ঢোকার সময় মেয়েটিকে ভালোভাবে চেক করে নেওয়া হতো যাতে সে কোনো রকম খাবার নিয়ে ঢুকতে না পারে। এইভাবে চলতে থাকার পর বাবাকে বাঁচানোর জন্য মেয়েটি বাধ্য হয়ে তার বাবাকে নিজের স্তন থেকে দুধ খাওয়াতে লাগলো।

এভাবে একমাস চলতে থাকার পর সেখানকার প্রহরীদের সন্দেহ হলো যে কীভাবে একজন মানুষ এতদিন না খেয়ে বেঁচে আছে। ঠিক তার পরদিন এক প্রহরী মেয়েটির পিছু নেয় এবং বাবাকে নিজের বুকের দুধ খাওয়ানো অবস্থায় মেয়েটিকে ধরে ফেলে।

এ বিষয়ের উপর আবার মামলা মোকদ্দমা হয়। এমন ঘটনার খবর ছড়িয়ে পরে ইউরোপের প্রতিটি রাজ্যে থেকে আনাচে-কানাচে। বৈঠক হয় মন্ত্রী থেকে সরকার পর্যায়ে।

অবশেষে সরকার আইনের চুক্ষু বন্ধ করে, বিবেকের চক্ষু খুলে এ বিষয়ের উপর বিচার করে রায় দেন। এতে পিতা ও কন্যা দুজনকেই মুক্ত করে দেওয়া হয়।

নারী মা হোক অথবা স্ত্রী আবার না হয় বন তিনি সবেতেই সাক্ষাৎ দেবী। তাই নারীদের কখনো তুচ্ছ ভাববেন না বরং তাদের সম্মান করুন।

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook

Instagram

You Tube

"At the end of Love there is Pure Love"

Pure Love © 2020 | Privacy Policy