06/09/2018

এই ৬ টি মন্ত্র প্রতিদিন জপ করুন, ৭ দিনের মধ্যেই হবে সব সমস্যার সমাধান…

মন্ত্র বলতে বোঝায় একটি ঐশ্বরীক বাচনভঙ্গী, ভক্তিমূলক শব্দ বা শব্দাংশ, বাক্য, ধ্বনি বা শব্দের দল। যাতে বিশ্বাস করা হয় ঐশ্বরিক ও মনস্তাত্ত্বিক এবং আধ্যাত্মিক শক্তি রয়েছে। মন্ত্রের হয়ত কোন বাক্যরীতি বা আক্ষরিক অর্থ নেই, মন্ত্রের আধ্যাত্মিক মূল্য বোঝা যায় যখন এটি শোনা, দেখা বা মনের গভীরে ধারন করা হয়।

বিজ্ঞানমনষ্কতার যুগে এসেও মানুষ আজও মন্ত্র তন্ত্রের প্রতি অগাধ বিশ্বাস করে। হিন্দু শাস্ত্র অনুযায়ী নিম্নে উল্লেখিত মন্ত্রগুলি জপ করলে অভাবনীয় ফল পেতে পারেন। এতে আপনার চারিদিকে খারাপ শক্তির প্রভাব কমবে, বিপদ ও দুর্ঘটনার আশঙ্কা হ্রাস পাবে, মানসিক ও দৈহিক শক্তির বিকাশ ঘটবে, আপনার জীবনে সুখ শান্তি ও সমৃদ্ধি বজায় থাকবে, আসবে পজিটিভ শক্তি। তার জন্য নিম্নোক্ত মন্ত্রগুলি নিষ্ঠার সঙ্গে জপ করুন।

 

১. “ওম” মন্ত্র:

এই মন্ত্রটির উপকারিতা বলে শেষ করা যাবে না। মনকে ঠান্ডা করার পাশাপাশি নানাবিধ রোগকে দূরে রাখতে ওম মন্ত্রের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। এক কথায় বলা যেতে পারে সুন্দর জীবনের চাবিকাঠি হল এই মন্ত্র। তাই তো প্রতিদিন ওম মন্ত্রের জপ করলে আপনার জীবনে শত চেষ্টা করেও দুঃখ নিজের জায়গা করে নিতে পারবে না।

 

২. “ওম নমঃ শিবায়”:

দেবাদিদেব হলেন জীবনের উৎস। তার শরণাপন্ন হওয়া মানে সমস্ত দুঃখের অবশান ঘটবে। জীবন হয়ে উঠবে অনন্দে আলোকময়। তাই প্রতিদিন ভগবান শিবের এই মন্ত্রটি পাঠ করুন, দেখবেন জীবনের অর্থ খুঁজে পাবেন। সেই সঙ্গে মন শান্ত হবে, আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি পাবে, স্ট্রেস বা মানসিক চাপ কমবে, আশান্তি দূর হবে এবং জীবনে আপনি যা চান তা পাওয়ার রাস্তা প্রশস্ত হবে।

 

৩. গায়ত্রী মন্ত্র:

“ওম ভুর ভবসোহা, তথ সাভিতুর ভারেন্নিয়াম, ভার্গো দেবাসায়া ধিমাহি, ধিয়ো ইয়ো না প্রাচোদায়া”- ঋক বেদে উল্লেখ রয়েছে গায়েত্রী মন্ত্র পাঠ করলে আমাদের সব ক্ষত, তা মনের হোক, শরীরের হোক কী মস্তিষ্কের, সব ধরনের যন্ত্রণার উপশোম ঘটে। সেই সঙ্গে মন, খারাপ চিন্তা থেকে মুক্তি পায়। ফলে আমাদের শরীর পজেটিভ এনার্জিতে পরিপূর্ণ হয়ে ওঠে এবং সর্বপরি এই মন্ত্র আমাদের আশেপাশের পরিবেশে উপস্থিত নেগেটিভ এনার্জিকেও শেষ করে দেয়। প্রসঙ্গত, মস্তিষ্ক এবং হার্টের কর্মক্ষমতা বাড়াতেও এই মন্ত্রটির কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে।

 

৪. “ওম সার্বেশম সাভাস্তির ভবতু” (শান্তির মন্ত্র):

মনে মনে সারা দিন ধরে এই মন্ত্রটি জপ করতে থাকুন। দেখবেন মন শান্ত হবে। মনোযোগ বাড়বে, মন ভালো চিন্তায় ভরে যাবে এবং অবশ্যই জীবনে শান্তি নিয়ে আসবে। যেদিন অফিসে একটু ঝামেলার কাজ থাকবে অথবা যদি কোন কাজের কারণে মন অশান্ত হয়ে ওটে তাহলে এই মন্ত্রটি পাঠ করতে শুরু করুন। দেখবেন নিমেষে মন চাঙ্গা হয়ে উঠবে।

 

৫. “ওম গম গনপাতেয়া নামহ”:

এই মন্ত্রের অর্থ হল, “আমি ভগবান গনেশের সামনে নত হয়ে প্রর্থনা করছি, আমার জীবনের সব বাঁধা এবং যন্ত্রণা যেন দূর হয়।” বাস্তবিকই এই মন্ত্রটি পাঠ করলে সব ধরেনর বাঁধা একে একে সরতে থাকে। তাই যখনই মনে হবে আপনি থমকে গেছেন। নানা কিছু আপনাকে জীবনের পথে এগতে দিচ্ছে না, তখন এই মন্ত্রটি পাঠ করা শুরু করুন। দেখবেন ফল মিলতে দেরি লাগবে না। শুধু তাই নয়, জীবনের লক্ষে পৌঁছাতে যখনই বাঁধার সম্মুখিন হবেন, তখনই ভগবান গনেশের এই মন্ত্রটি জপ করুন। এমনটা করলে ফল পাবেনই, তা হলফ করে বলতে পারি।

 

৬. “ওম মানি পদমে হাম”:

প্রাচীন বৌদ্ধ ধর্মগ্রন্থ ঘেঁটে জানা গেছে এই মন্ত্রটি দিনে কম করে হাজার বার মনে মনে পাঠ করলে জীবনে কোন দিন অশন্তির মেঘ দেখা যাবে না। শুধু তাই নয়, মৃত্য়ুর সময় সেই ব্যক্তিকে যখন দাহ করা হয়, তখন চিতার ধোঁয়া এবং গন্ধ যারা যার কাছে পৌঁছায়, তার জীবনেরও সব পাপ ধুয়ে যায়। এবার বুঝতে পারছেন এই মন্ত্রটি কতটা শক্তিশালী। প্রসঙ্গত, এমনও বিশ্বাস আছে এই মন্ত্রটি যিনি মন দিয়ে পাঠ করবেন, তিনি জীবনে চলার পথে ভাল বন্ধু পাবেন, আত্মবিশ্বাসে পরিপূর্ণ থাকবেন, খারাপ কিছু ঘটবে না, কেউ ঠকাতে পারবে না এবং মনের সব ইচ্ছা পূরণ হবে।

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook

Instagram

You Tube

"At the end of Love there is Pure Love"

Pure Love © 2019 | Privacy Policy